চুলপড়া প্রতিরোধে প্রাকৃতিক উপায়

একটা ছেলের মাথায় চুল নেই তা না হয় মেনে নিলাম,কিন্তু একটি মেয়ের মাথা চুলশূন্য-এমনটি কি আর মেনে নেওয়া যায়? মানুন অথবা না মানুন,নিয়মিত পারলারের ট্রিটমেন্ট নেওয়ার ফলে সুন্দরীর মাথা চুলশূন্য হয়ে যেতে পারে,অথচ ঘরে বসে প্রাকৃতিক ট্রিটমেন্ট নিলে তেমনটা হওয়ার আশংকা একেবারেই নেই।

নিচের পরামর্শ অনুসরন করে দেখুন না,কত সহজে চুল পড়া কমে যেতে পারে-

গরম তেলের ট্রিটমেন্ট-
ক্যানোলা,জলপাই বা নারিকেল তেলের মতো প্রাকৃতিক তেল নিন,এবার উষ্ণ গরম করুন। গরম হওয়ার পর হালকাভাবে চুলের গোড়ায় ম্যাসেজ করুন,ঘন্টা খানেক অপেক্ষা করুন। এবার শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন।

প্রাকৃতিক রস-
রসুন,আঁদা বা পেঁয়াজের রস চুলের গোড়ায় ঘষতে পারেন। রাতে ঘুমুতে যাওয়ার আগে মাথায় দিলে সকালে তা ধুয়ে ফেলুন।

মাথা মালিশ করান-
দৈনিক মাথা মালিশ করতে পারেন,এতে মাথার ছালে রক্ত সঞ্চালন প্রক্রিয়া উৎদীপ্ত থাকবে এবং চুলের রসস্রাবী গ্রন্থিগুলো সক্রিয় হবে যা চুল পড়া বন্ধ করতে খুবই সহায়ক।

অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস-
এক কাপ উষ্ণ-গরম পানিতে সবুজ চা মেশান। ঘণ্টা খানেক অপেক্ষার পর মাথার তালুতে আলতোভাবে মালিশ করুন। সবুজ চায়ে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট চুল পড়া রোধ করে চুল লম্বা হতে সাহায্য করে।

মেডিটেশন করুন-
বিশ্বাস করুন আর নাই করুন,চুল পড়ার মুল কারণ হলো মানসিক চাপ ও টেনশন। তাই কোনোভাবেই টেনশনকে কাছে ভিড়তে দেওয়া যাবে না। জানি, এটা বলা যত সহজ করাটা ততো নয়। এ ক্ষেত্রে আপনি মেডিটেশনের সাহায্য নিতে পারেন। মেডিটেশন চাপ ও টেনশন কমাতে সাহায্য করে।

প্রতিদিন ৫০ থেকে ১০০টি চুল পড়া স্বাভাবিক। চুলের যত্ন ঠিকমতো না নেওয়া, বংশগতি, অতিরিক্ত রাসায়নিক ব্যবহার ইত্যাদি কারণে চুল পড়ার সমস্যা হয়।

কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো চুলপড়া প্রতিরোধে কাজ করে। চুলপড়া প্রতিরোধ করে, এমন চার খাবারের নাম জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিষয়ক ওয়েবসাইট টপ টেন হোম রেমেডি।

১. ডিম
প্রোটিন চুলের মূল উপাদান। আর ডিমে রয়েছে প্রোটিন। তাই চুল ভালো রাখার জন্য ডিম খাওয়া উপকারী। প্রোটিন ছাড়াও ডিমের মধ্যে রয়েছে বায়োটিন ও ভিটামিন বি। এগুলো চুলপড়া প্রতিরোধে কাজ করে।

২. বাদাম
বাদামের মধ্যে রয়েছে প্রোটিন, ভিটামিন, মিনারেল, স্বাস্থ্যকর চর্বি ও ফাইটোক্যামিক্যাল। এগুলো চুলপড়া প্রতিরোধ করে এবং চুলের মলিন ভাব কমায়। নিয়মিত বাদাম খেলে সারা বছরই চুল ভালো থাকে।

৩. গাজর
গাজরের মধ্যে রয়েছে বেটা কেরোটিন। এটি চুল স্বাস্থ্যকর রাখার জন্য জরুরি। সকালে এক গ্লাস গাজরের জুস খেয়ে দিন শুরু করুন।

৪. পালং শাক
পালং শাকে পুষ্টি ভরপুর রয়েছে। পাশাপাশি রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এ সবুজ শাকটির মধ্যে রয়েছে ভিটামিন বি, সি ও ই। এ ছাড়া রয়েছে পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন ও ম্যাগনেসিয়াম। পাশাপাশি রয়েছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড। এগুলো চুলের জন্য ভালো।

রোগীর অবস্থা শুনে ও দেখে সারাদেশের যে কোনো জেলায় বিশ্বস্ততার সাথে কুরিয়ার সার্ভিসে ঔষধ পাঠানো হয়।

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বিশ্বস্ততার সাথে ঔষধ ডেলিভারী দেওয়া হয়।

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)
হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার
একটি বিশ্বস্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান।

মুঠোফোন : 01742-057854

(সকাল দশটা থেকে বিকেল ৫টা)

ইমো/হোয়াটস অ্যাপ : 01762-240650

ই-মেইল : ibnsinahealthcare@gmail.com

শ্বেতীরোগ একজিমাযৌনরোগ, পাইলস (ফিস্টুলা) ও ডায়াবেটিসের চিকিৎসক।

Leave a Reply