সন্তানকে ভুলেও যা বলবেন না!

প্রত্যেক মা-বাবাই চায় সন্তান ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে উঠুক। এজন্য কখনও ভালোবেসে আবার কখনও বকা ও শাস্তি দিয়ে শাসন করেন অভিভাবক।

তবে না জেনে বা বুঝে অনেক সময় মা-বাবা সন্তানকে এমন কিছু কথা বলেন, যা তাদের মনের ওপর গভীর প্রভাব ফেলে। এতে তাদের মানসিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত হয়।

নিজের মনোভাব প্রকাশ করার একটি ওয়েবসাইটে এমনই কিছু অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিয়েছেন কয়েকজন নারী-পুরুষ। তারা নিজেদের ছোটবেলার বেশকিছু কথা আজও ভুলতে পারেন না।

যা তাদের অভিভাবকরা সব সময়ই তাদের শুনিয়েছেন। এর মাধ্যমে তারা অন্যান্য অভিভাবকদের সতর্ক করতে চান। শিশুদের কোন ধরনের কথা বলা উচিত নয়, তা জেনে নিন এখানে-

> ‘তোমার সন্তান হলে তুমি বুঝবে’- এ কথাটি কখনও সন্তানকে বলবেন না। এত তাদের মন ছোট হয়ে যায়। যে কোনো কাজে তারা মনোযোগ হারাতে পারে।

> সন্তানের প্রতিভা বা তার কোনো কাজ নিয়ে সামনেই অপমান করবেন না। এতে আপনার সন্তানের প্রতিভা অপমানিত হয়। সন্তান নিজের ছোট প্রচেষ্টায়ও মা-বাবার প্রশংসা পেতে চায়। তাই তার মনে আঘাত লাগে এমন কিছু বলবেন না।

​>> সন্তানের সামনে কখনও মিথ্যা বলবেন না। মনোবিজ্ঞানীদের মতে, শিশুদের কখনও এমন কোনো মিথ্যা কথা বলবেন না, যার সত্যতা ভবিষ্যতে তারা জেনে যেতে পারে। এতে শিশুর মনে খারাপ প্রভাব পড়ে। এছাড়া বারবার মিথ্যা বললে মা-বাবার প্রতি শিশুর বিশ্বাস হারায়।

>> সন্তান কোনো কারণে মন খারাপ করলে তা দেখে উপহাস করবেন না। মনোবিজ্ঞানীদের পরামর্শ মতে, ছোটদের কষ্টকে ছোট করে দেখবেন না। আবার তাদের অনেক বেশি নিয়ন্ত্রণও করা উচিত নয়। সন্তানের ওপর তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোনো কিছু চাপিয়ে দেওয়াও মা-বাবার উচিত নয়।

> অনেক বাবা-মা তাদের এক সন্তানের সঙ্গে অন্য ভাই-বোনের তুলনা করেন। এটি কিন্তু খুবই খারাপ চিন্তা-ধারণা। এক সন্তান অন্যটির চেয়ে অসফল হলেও কখনও তাকে ছোট করবেন না। সন্তানদের সামনে আত্মীয়দের কাছে তাদের মধ্যে তুলনা করবেন না।

মনোবিদদের মতে, সন্তানকে কখনও বলবেন না যে আপনি তাকে ভালোবাসেন না বা তাকে জন্ম দিয়ে ভুল করেছেন। তার মনে এমন কোনো নেতিবাচক চিন্তা-ভাবনা এলে তারা পরিবারের সদস্যদের থেকে দূর হতে শুরু করে।

প্রিয় পাঠক,আমরা প্রতিটা রোগ সম্পর্কে আপনাকে তথ্য দেই, সচেতন করি। আমরা এই লেখায় আপনাকে চিকিৎসা প্রদান করি না। কারণ চিকিৎসার বিষয়টি সম্পূর্ণ আপনার রোগের অবস্থা অনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন আপনার চিকিৎসক। তাই এই লেখার মাধ্যমে আপনি আপনার রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে, সচেতন হয়ে চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন।

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বিশ্বস্ততার সাথে ঔষধ ডেলিভারী দেওয়া হয়।

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)

হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার
একটি বিশ্বস্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান।

মুঠোফোন : 01742-057854

(সকাল দশটা থেকে বিকেল ৫টা)

ইমো/হোয়াটস অ্যাপ : 01762-240650

ই-মেইল : ibnsinahealthcare@gmail.com

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসে ঔষধ পাঠানো হয়।

শ্বেতীরোগ একজিমাযৌনরোগ, পাইলস (ফিস্টুলা) ও ডায়াবেটিসের চিকিৎসক।

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ, লক্ষ্মণ ও চিকিৎসা

আরও পড়ুন: বীর্যমনি ফল বা মিরছিদানার উপকারিতা

আরো পড়ুন : অর্শ গেজ পাইলস বা ফিস্টুলা রোগের চিকিৎসা

আরো পড়ুন :  নারী-পুরুষের যৌন দুর্বলতা এবং চিকিৎসা

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকারে শক্তিশালী ভেষজ ঔষধ

আরো পড়ুন : দীর্ঘস্থায়ী সহবাস করার উপায়

শেয়ার করুন: