স্বামীর যে ৫ বদ অভ্যাস স্ত্রীর বিরক্তির কারণ

কোনো বিয়ে নিখুঁত নয় এবং কোনো সঙ্গীই ত্রুটিহীন নন। আমাদের সবারই কোনো না কোনো কমতি আছে। আছে এমন কিছু অভ্যাস যা অপরজনের জন্য বিরক্তির কারণ হতে পারে।

আপনার মধ্যেও এমন কিছু স্বভাব থাকতে পারে যা আপনার স্ত্রীর জন্য বিরক্তির কারণ। যদি আপনি সেসব অভ্যাস সংশোধন না করেন তবে খুব শিগগিরই সম্পর্কের অবনতি হতে পারে। আপনার এই পাঁচ অভ্যাস থাকলে বাদ দিন-

কাপড় এলোমেলো করে রাখা

যদি আপনার কাপড় গুছিয়ে রাখার জন্য অন্য কেউ না থাকে তবে আপনাকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, আপনার স্ত্রী আপনার কাপড় গুছিয়ে রাখতে বাধ্য নয় এবং বাড়ির একটি নির্দিষ্ট সাজসজ্জা রয়েছে যা অবশ্যই মেনে চলা উচিত।

তিনি আপনার এলোমেলো করা কাপড় গুছিয়ে রাখতে গিয়ে বিরক্ত হতে পারেন। ব্যস্ততার কারণে একবার-দু’বার এমনটা করলে ঠিক আছে। যদি প্রতিদিন এমন করতে থাকেন, তবে আপনার অভ্যাস সংশোধন করার সময় এসেছে।

হুম এবং মাথা নেড়ে উত্তর দেওয়া

তিনি আপনার সাথে কথা বলছেন এবং আপনার প্রতিক্রিয়া নিছক সম্মতি, হুম বা কিছুই নয়। এই আচরণ অগ্রহণযোগ্য। আপনি পরোক্ষভাবে তাকে দেখাচ্ছেন যে তিনি আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ নয়। এই অভ্যাস কখনো কখনো ইচ্ছাকৃতও হয় না।

হতে পারে আপনি মন দিয়ে শুনছেন না। আপনি যদি একটি নির্দিষ্ট বিষয় সম্পর্কে কথা বলতে না চান তবে কেবল সেটি বলুন, তার কথা মন দিয়ে শুনুন এবং উত্তর দিন। এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন না।

আপনার কাজ শেষে পরিষ্কার করা

শেভ করার পর আপনাকে সিঙ্ক এবং বাথরুম পরিষ্কার করতে হবে। কখনো তা আপনার স্ত্রীর আশায় রেখে দেবেন না। কারণ তিনি আপনার ক্লিনার নন! আপনার স্ত্রীও সেই বাথরুম ব্যবহার করছেন। কাজেই যত ব্যস্তই থাকুন না কেন, শেভ করার পরে পরিষ্কার করুন। চেষ্টা করুন তাকে বিরক্ত না করার বা অকারণে তার ওপর চাপ না দেওয়ার।

শিশুসুলভ আচরণ

একটু সান্ত্বনা আমাদের সবারই প্রয়োজন কিন্তু আপনি যদি ছোটোখাটো সর্দি থাকলেও সব সময় শিশুর মতো আচরণ করেন তবে সেটি গ্রহণযোগ্য নয়। তিনি আপনার মা নন এবং তার আরও অনেক কাজ আছে। আপনি যদি তার মনোযোগ চান তবে তা স্বাভাবিক। তার কাছে যান এবং তার পাশে বসুন, তার সাথে থাকুন। তবে অন্যায্য আবদার করতে থাকবেন না। যদি সে আপনার জন্য কিছু করতে চায়, তবে নিজে থেকেই করবে।

প্রাক্তন

আপনি যদি আপনার প্রাক্তনের সঙ্গে এখনও যোগাযোগ রাখেন তবে তা আপনার স্ত্রী কোনোভাবেই মেনে নেবেন না। সেই নারীর সঙ্গে আপনার একটি অতীত ছিল। সেই অতীতকে অতীতেই ফেলে রাখুন না! তাকে ভুলেও বর্তমানে টেনে আনবেন না। মনে রাখবেন, নারীরা যেমন মায়াবতী, প্রয়োজনে তেমন নির্মমও হতে পারে।

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ, লক্ষ্মণ ও চিকিৎসা

আরো পড়ুন : যৌন রোগের শতভাগ কার্যকরী ঔষধ

আরও পড়ুন: বীর্যমনি ফল বা মিরছিদানার উপকারিতা

আরো পড়ুন : অর্শ গেজ পাইলস বা ফিস্টুলা রোগের চিকিৎসা

আরো পড়ুন :  নারী-পুরুষের যৌন দুর্বলতা এবং চিকিৎসা

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকারে শক্তিশালী ভেষজ ঔষধ

আরো পড়ুন : দীর্ঘস্থায়ী সহবাস করার উপায়