সঠিক সময়ে ঘুম না আসলে করণীয়

কথায় আছে, ঘুম ছাড়া মানুষের বেঁচে থাকা অসম্ভব। আসলেও তাই। ঘুমের মাধ্যমেই মানবমস্তিষ্ক বিশ্রাম পায়। তাই সঠিক ঘুম না পেলে মস্তিষ্ক দুর্বল হয়ে পড়বে। আর মস্তিষ্ক দুর্বল হয়ে পড়া মানে শরীর অকেজো হয়ে পড়া। তবে মানুষ নানা কারণেই সঠিক ঘুম থেকে বঞ্চিত হন। নিচে সঠিক ও স্বাস্থ্যকর ঘুমের কয়েকটি উপায় নিয়ে আলোচনা করা হলো :

ঘুমের ১ ঘণ্টা আগে খাবার খান: রাতে ঘুমানোর কমপক্ষে ১ ঘন্টা আগে খাবার খেয়ে নিন। এরপর ৫-১০ মিনিট হাঁটাহাঁটি করুন। এটি খাবার হজমে দারুণ সহায়তা করে। সঙ্গে ক্লান্তিও আসে। ফলে বিছানায় শোয়া মাত্রই ঘুম আসে।

নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমান : ঘুম না আসলেও নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমানোর জন্য বিছানায় যাওয়া উচিত।তবে মাথায় রাখবেন, ঘুম না আসলে তার জন্য আলাদাভাবে কোনও চেষ্টা করা যাবে না।
বই পড়ুন: ঘুম না আসলে বই পড়তে শুরু করুন। তবে তা মোটেও মনযোগ দিয়ে নই। দেখবেন বই পড়তে পড়তে একটা সময় চোখ এঁটে আসছে। আর তখনই বই রেখে ঘুমিয়ে পড়ুন।

মেডিটেশন করুন : এই উপায়টি ঘুমানোর ক্ষেত্রে দারুণ কার্যকর। মেডিটেশনটি এরকম- চোখ বন্ধ করে বাসার ছাদ বরাবর তাকিয়ে থাকুন এবং চোখের মনি আনুমানিক ১৯ ডিগ্রী অ্যাঙ্গেল এ রাখুন। তারপর বাসার ছাদে একটা বিশাল সাদা রং এর পর্দা কল্পনা করুন। আর তার মধ্যে হালকা নিল রঙের একটা সংখ্যা কল্পনা করুন, তাহলো ১৯। এরপর তা আসতে আসতে মিলিয়ে যাচ্ছে এবং আবার আসতে আসতে আরেকটা সংখ্যা আসছে, তাহলো ১৮। এইভাবে উল্টো কাউন্ট করতে থাকুন। তবে তা খুব ধীরে ধীরে। এইভাবে কিছুক্ষণ করার পর দেখবেন আপনার ঘুম চলে আসছে।

নিয়মিত গোসল : অফিস থেকে বা বাইরে থেকে এসে গোসল সেরে নিন। এতে সারা দিনের ক্লান্তি এক নিমিষে চলে যাবে। মনটাও ফুরফুরা হয়ে যাবে। ফলে বিছানায় শোয়া মাত্রই ঘুম আসবে।

গরম দুধ খান: পারলে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস গরম দুধ খান। তা ঘুমানোর জন্য খুবই উপকারি।

এছাড়া ঘুমাতে যাওয়ার আগে আরো কিছু কাজ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। যেমন টিভি দেখা যাবে না, কম্পিউটারে কাজ করা থেকে বিরত থাকুন। এছাড়া পরের দিনের কাজের পরিকল্পনা আগেই করে ফেলুন। চেষ্টা করুন দুশ্চিন্তা না করার। শোবার ঘরটি অযথা একগাদা জিনিস দিয়ে ভরে রাখবেন না।

প্রিয় পাঠক,আমরা প্রতিটা রোগ সম্পর্কে আপনাকে তথ্য দেই, সচেতন করি। আমরা এই লেখায় আপনাকে চিকিৎসা প্রদান করি না। কারণ চিকিৎসার বিষয়টি সম্পূর্ণ আপনার রোগের অবস্থা অনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন আপনার চিকিৎসক। তাই এই লেখার মাধ্যমে আপনি আপনার রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে, সচেতন হয়ে চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন।

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বিশ্বস্ততার সাথে ঔষধ ডেলিভারী দেওয়া হয়।

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)

হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার
একটি বিশ্বস্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান।

মুঠোফোন : 01742-057854

(সকাল দশটা থেকে বিকেল ৫টা)

ইমো/হোয়াটস অ্যাপ : 01762-240650

ই-মেইল : ibnsinahealthcare@gmail.com

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসে ঔষধ পাঠানো হয়।

শ্বেতীরোগ একজিমাযৌনরোগ, পাইলস (ফিস্টুলা) ও ডায়াবেটিসের চিকিৎসক।

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ, লক্ষ্মণ ও চিকিৎসা

আরও পড়ুন: বীর্যমনি ফল বা মিরছিদানার উপকারিতা

আরো পড়ুন : অর্শ গেজ পাইলস বা ফিস্টুলা রোগের চিকিৎসা

আরো পড়ুন :  নারী-পুরুষের যৌন দুর্বলতা এবং চিকিৎসা

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকারে শক্তিশালী ভেষজ ঔষধ

আরো পড়ুন : দীর্ঘস্থায়ী সহবাস করার উপায়